পুলিশের টার্গেট শুধু রিকশাচালকরা! পুলিশের টার্গেট শুধু রিকশাচালকরা! – Sabuj Bangla Tv
  1. shahinit.mail@gmail.com : admin :
  2. khandakarshahin@gmail.com : সবুজ বাংলা টিভি : সবুজ বাংলা টিভি
শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০২:২৯ অপরাহ্ন
নোটিশ-
বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন টিভি চ্যানেল সবুজবাংলা টিভি এর জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

পুলিশের টার্গেট শুধু রিকশাচালকরা!

সবুজ বাংলা টিভি
  • প্রকাশ কাল | শনিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৭৬ পাঠক

সিলেটে সর্বাত্মক লকডাউনের তৃতীয় দিন শেষ হয়েছে শুক্রবার। এদিন সকাল থেকে নগরের প্রবেশমূখসহ প্রতিটি মোড়ে সতর্ক অবস্থানে ছিলো পুলিশ। সেই সাথে পুলিশের টহলও ছিল বিভিন্ন সড়কে। লকডাউনে বন্ধ ছিলো বিপণিবিতান ও দোকানপাট। বন্ধ ছিলো সব ধরণের গণপরিবহন। তবে মাঝে মধ্যে কিছু কিছু সড়কে সিএনজি অটোরিকশা চলাচল করতে দেখা গিয়েছিলো। তবে পুলিশের টার্গেট ছিলো যেন শুধু রিকশার উপরেই!

গণপরিবহন বন্ধ থাকায় নগরের সড়কে ছিলো রিকশার দাপট। আর পুলিশের রূঢ় আচরণও ছিলো চালকদের প্রতি। এদিন কয়েকটি রিকশার চাকা পামচার ও উল্টিয়ে দেয় পুলিশ সদস্যরা। একই সময়ে পুলিশের চোখের সামনে দিয়ে অনেক ব্যাক্তিগত পরিবহণ, সিএনজি অটোরিকশা ও মোটর সাইকেল চলতে দেখা গেছে।

রিকশা চালকদের দাবি, আমরা গরিব ও অসহায় বলে শুধু আমাদের উপর পুলিশের চোখ রয়েছে। অন্যান্য গাড়ি চলাচল করলেও তাদেরকে কিছু বলতে পারেন না। শুধু আমাদের উপর জরিমানা ও অবিচার করা হয়। তাদের টার্গেটই শুধু আমরা। তবে, পুলিশ বলছে সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে সবার প্রতি সমান আচরণ করা হচ্ছে। কাউকেই বিনা কারণে বাইরে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না।

শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) সকাল থেকে সিলেট নগরীর চৌহাট্টা, আম্বরখানা, জিন্দাবাজার, বন্দরবাজার, তালতলা, দক্ষিণ সুরমার কদমতলী, সোহবানীঘাট, মেডিক্যাল রোড, সুবিদবাজার, মদিনা মার্কেট, পাঠানটুলা এলাকায় পুলিশের নজরদারি ছিলো চোখে পড়ার মতো। সেই সাথে এসব এলাকার রাস্তাঘাটও ফাঁকা ছিলো। এছাড়া নগরীতে মোটরসাইকেল, প্রাইভেট যানবাহন, সিএনজি অটোরিকশা নিয়ে চলাচল করায় তাদের বিরুদ্ধে ট্রাফিক পুলিশ মামলারে পাশাপাশি জরিমানাও করেছে।

এদিন বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে নগরের আম্বরখানা এলাকায় বেশ কয়েকজন রিকশাচালকে পুলিশের জেরা করতে দেখা যায়। এসময় রিকশা থেকে যাত্রীদের নামিয়ে চাকা পামচার করে ও রিকশা উল্টিয়ে রেখে দেয় পুলিশ। প্রতিবাদে চালকরা পুলিশের সাথে বাকবিতণ্ডা শুরু করেন।

হেমায়েত নামের এক রিকশা চালক জানান, পুলিশের টার্গেট শুধু আমরা। এখন কত সিএনজি ও মোটরসাইকেল চলাচল করছে কাউকে আটকানো হচ্ছে না। আমরা গরিব ও অসহায় বলে আমাদের আটকিয়ে ক্ষমতা দেখানো হচ্ছে। আমরা রাস্তায় না বেরুলে পরিবারের সবাই উপোস থাকতে হয়।

এসময় দায়িত্ব পালনকারী এক পুলিশ সদস্য জানান, স্বাস্থ্যবিধি না মানায় আম্বরখানা পয়েন্টে অন্তত ১০/১২টি রিকশা আটকানো হয়েছে। কয়েকটি রিকশা থেকে থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। সরকারি নির্দেশনা বাস্তবায়নে চালকদের বাইরে বের না হতে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

সিলেট মহানগর পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার (গণমাধ্যম) আশরাফ উল্যাহ তাহের জানান, সর্বাত্মক লকডাউন বাস্তবায়নে পুলিশ এখন কঠোর অবস্থানে রয়েছে। প্রতিদিনই পুলিশের অভিযান চলছে। সেই সাথে যারা লকডাউন না মেনে বাহির হয়েছেন তাদেরকে জরিমানা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, লকডাউন বাস্তবায়নে সিলেট মহানগর পুলিশের ছয়টি থানা এলাকা পুলিশের কঠোর নজরদারিতে রয়েছে। নগরের সকল প্রবেশমুখ বন্ধ রয়েছে। সেখানে পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। বিনা কারণে কাউকে নগরে প্রবেশ ও বাহির হতে দেওয়া হচ্ছে না।

আমাদের সংবাদটি শেয়ার করুন..

এ পাতার আরও খবর

Sabuj Bangla Tv © All rights reserved- 2011| Developed By

Theme Customized BY WooHostBD