ওপেকের জ্বালানি তেল রপ্তানি বৃদ্ধি ওপেকের জ্বালানি তেল রপ্তানি বৃদ্ধি – Sabuj Bangla Tv
  1. shahinit.mail@gmail.com : admin :
  2. khandakarshahin@gmail.com : সবুজ বাংলা টিভি : সবুজ বাংলা টিভি
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৭:৩৫ অপরাহ্ন
নোটিশ-
বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন টিভি চ্যানেল সবুজবাংলা টিভি এর জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

ওপেকের জ্বালানি তেল রপ্তানি বৃদ্ধি

সবুজ বাংলা টিভি
  • প্রকাশ কাল | মঙ্গলবার, ২৫ মে, ২০২১
  • ২৩৭ পাঠক

বিশ্বের তেল রপ্তানিকারক দেশগুলোর জোট ওপেক জ্বালানি তেল রপ্তানি বাড়িয়েছে। চলতি মাসে জোটটি প্রতিদিন ১০ লাখ ব্যারেল করে জ্বালানি তেল রপ্তানি বাড়ায়। ওপেক-বহির্ভূত দেশগুলোর সংগঠন ওপেক প্লাস তেলের বাজার চাঙ্গা করতে সরবরাহ ও উত্তোলন হ্রাসের নীতি অনুসরণ করে আসছিল। তবে করোনায় সৃষ্ট সংকটে জ্বালানি তেল উত্তোলন ও সরবরাহ বৃদ্ধির পরিকল্পনা হাতে নেয় জোটটি।

ওপেক প্লাস চলতি মাসে দৈনিক সাড়ে তিন লাখ ব্যারেল জ্বালানি তেল উত্তোলন কমিয়ে আনার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে। বৈশ্বিক জ্বালানি তেল বাণিজ্য পর্যবেক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান পেট্রো লজিস্টিকস এ তথ্য জানায়। খবর অয়েলপ্রাইসডটকম।

চলতি বছরের এপ্রিলের শুরুতে ওপেক প্লাস জোটভুক্ত দেশগুলোর মন্ত্রিপর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ বৈঠকে পরবর্তী তিন মাসে তেল উত্তোলন ধারাবাহিকভাবে বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মে ও জুলাইয়ে ধারাবাহিকভাবে প্রতিদিন ১০ লাখ ব্যারেল করে জ্বালানি তেল সরবরাহ বাড়াবে জোটটি।

এছাড়া মে ও জুনে দৈনিক সাড়ে তিন লাখ ব্যারেল ও জুলাইয়ে চার লাখ ব্যারেলেরও বেশি জ্বালানি তেল উত্তোলন বাড়ানোর কথা জানায় ওপেক প্লাস।

এর আগে জোটের বাইরে সৌদি আরব একাই আগামী কয়েক মাসে দৈনিক ১০ লাখ ব্যারেল করে জ্বালানি তেল উত্তোলন কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। দেশটি এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে। এতে মাসিক উত্তোলনের পরিমাণ বেড়ে গেছে।

মে ও জুনে দেশটি প্রতিদিন আড়াই লাখ ব্যারেল করে উত্তোলন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সব মিলিয়ে ওপেক প্লাস আগামী জুলাইয়ে দৈনিক ২১ লাখ ব্যারেল জ্বালানি তেল আন্তর্জাতিক বাজারে সরবরাহ করতে সক্ষম হবে।

বিশ্বজুড়ে কভিড-১৯ টিকাদান কর্মসূচি বাড়ছে। করোনা পরিস্থিতি আগের তুলানায় কিছুটা স্বাভাবিক হতে শুরু করায় চাঙ্গা হচ্ছে বৈশ্বিক পর্যটন খাত। ফলে জ্বালানি তেল সরবরাহ বৃদ্ধির এ সিদ্ধান্ত পণ্যটির বাজার পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক রাখতে সহায়ক হবে বলে মনে করছেন ওপেক প্লাসের নেতারা। এ ব্যাপারে তারা আত্মবিশ্বাসী।

এপ্রিলের শেষ দিকে গোল্ডম্যান স্যাকস জানায়, ছয় মাসের মধ্যে জ্বালানি তেলের বৈশ্বিক চাহিদা বেড়ে সর্বোচ্চে পৌঁছবে। ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংক মনে করছে, ছয় মাসের মধ্যে জ্বালানি তেলের চাহিদা প্রতিদিন ৫২ লাখ ব্যারেলে গিয়ে দাঁড়াবে।

ভারতে করোনা পরিস্থিতিতে সৃষ্ট সংকটের মধ্যে বড় ধরনের দরপতন দেখা দিলেও ওপেক, ইনভেস্টমেন্ট ব্যাংকস ও ইন্টারন্যাশনাল এনার্জি এজেন্সির প্রত্যাশা, চলতি বছর জ্বালানি তেলের ক্রমবর্ধমান বৈশ্বিক চাহিদা দরবৃদ্ধিকে জোরজার করতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

অয়েলপ্রাইসডটকমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ইউরোপজুড়ে করোনাকালে আরোপ করা বিধিনিষেধ শীথিল হতে শুরু করেছে। বিশেষ করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ভ্রমণের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এতে জ্বালানি চাহিদা ধারাবাহিকভাবে বাড়তে শুরু করেছে। শুধু পেট্রল ও ডিজেল নয়, জেট জ্বালানির চাহিদাও বর্তমানে ঊর্ধ্বমুখী।

গত কয়েক সপ্তাহে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশ ও যুক্তরাজ্যে জ্বালানি তেলের বিক্রি কয়েক গুণ বেড়েছে। মহামারি শুরুর পর থেকে পণ্যটি সর্বাধিক বিক্রি হয়েছে। এ বছরের প্রথম প্রান্তিকে ইউরোপে জ্বালানি তেলের চাহিদা ৯ শতাংশ বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আইইএ। শেষ প্রান্তিকে এ অঞ্চলে পণ্যটির চাহিদা ৪ শতাংশ বাড়বে।

আমাদের সংবাদটি শেয়ার করুন..

এ পাতার আরও খবর

Sabuj Bangla Tv © All rights reserved- 2011| Developed By

Theme Customized BY WooHostBD