সাঙ্গু ও মাতামুহুরী রিজার্ভ ফরেস্ট সংরক্ষণে হেলিকপ্টারের মাধ্যমে বীজ ছিটানোর উদ্যোগ সাঙ্গু ও মাতামুহুরী রিজার্ভ ফরেস্ট সংরক্ষণে হেলিকপ্টারের মাধ্যমে বীজ ছিটানোর উদ্যোগ – Sabuj Bangla Tv
  1. shahinit.mail@gmail.com : admin :
  2. khandakarshahin@gmail.com : সবুজ বাংলা টিভি : সবুজ বাংলা টিভি
মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১২:২৯ পূর্বাহ্ন
নোটিশ-
বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন টিভি চ্যানেল সবুজবাংলা টিভি এর জেলা/উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে...

সাঙ্গু ও মাতামুহুরী রিজার্ভ ফরেস্ট সংরক্ষণে হেলিকপ্টারের মাধ্যমে বীজ ছিটানোর উদ্যোগ

সবুজ বাংলা টিভি
  • প্রকাশ কাল | সোমবার, ৩০ আগস্ট, ২০২১
  • ১১৯ পাঠক

দেশের অন্যতম প্রাকৃতিক বনাঞ্চল পার্বত্য জেলা বান্দরবানের সাংগু ও মাতামুহুরী রিজার্ভ সংরক্ষণে সেখানে হেলিকপ্টারের মাধ্যমে বীজ ছিটানোর উদ্যোগ নিয়েছে বনবিভাগ।

সেনাবাহিনী ও বিমান বাহিনীর সহায়তায় হেলিকপ্টারের মাধ্যমে বন বিভাগ এই দুটি রিজার্ভ বনের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বিভিন্ন প্রজাতির গাছের বীজ ছিটাবে। আগামী মঙ্গলবার আলীকদম উপজেলার বাবুপাড়া এলাকা থেকে শুরু হবে এই কার্যক্রম।
সেনাবাহিনীর বান্দরবান রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ জিয়াউল হক এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন। বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার মায়ানমার সীমান্ত সংলগ্ন মাতামুহুরী ও থানচি উপজেলার বিস্তীর্ণ সাঙ্গু রিজার্ভের যেসব এলাকায় গাছের সংখ্যা কম সেসব এলাকায় হেলিকপ্টার থেকে বীজ ছিটানো হবে  বলে বন বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
বান্দরবান বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোঃ ফরিদ মিয়া জানিয়েছেন, সাঙ্গু ও মাতামুহুরি রিজার্ভের যেসব এলাকায় গাছের সংখ্যা কম সেসব এলাকায় বিভিন্ন প্রজাতির গাছের বীজ ছিটানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এর আগে এই উদ্যোগের বিষয়টি মন্ত্রণালয়সহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছিল।
বর্তমানে বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টারের মাধ্যমে সেনাবাহিনীর সহায়তায় বান্দরবান ও লামা বনবিভাগের নিজস্ব উদ্যোগে এ কাজটি করা হচ্ছে। বিভিন্ন প্রজাতির গাছের বীজের মধ্যে চাপালিশ, গর্জন, চম্পা সহ দুর্লভ প্রজাতির বৃক্ষ থাকবে। এ প্রজাতির অনেক বৃক্ষ এখন রিজার্ভ থেকে বিলুপ্ত হয়ে গেছে। মূলত রিজার্ভ রক্ষার জন্য বন বিভাগ এই উদ্যোগ নিয়েছে।
এটি সফল হলে পরবর্তীতে আরো বড় পরিসরে এ ধরনের কার্যক্রম চালানো হবে। লামা বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা এস এম কায়সার জানিয়েছেন, হেলিকপ্টারের মাধ্যমে উপর থেকে বীজ ছিটানো হলে এতে বীজের  অঙ্কুরোদগম কেমন হবে তা একটি পরীক্ষার বিষয়। অধিকাংশ বীজ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তবে কিছু পরিমাণ বীজও যদি অঙ্কুরোদগম হয় তাও বনাঞ্চলের প্রকৃতির ভারসাম্য রক্ষার জন্য সহায়ক হবে।
বন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন ব্রিটিশ আমলে সর্বপ্রথম রিজার্ভ ফরেস্টে বীজ ছিটানোর কথা শোনা গিয়েছে। সাঙ্গু-মাতামুহুরী সংরক্ষিত বনাঞ্চল দেশের দক্ষিণ-পূর্ব দিকে বান্দরবান পার্বত্য জেলার থানচি ও আলীকদম উপজেলায় অবস্থিত। এটি ইন্দো-বার্মা জীববৈচিত্র্য হটস্পটের অংশ। ১৮৮০ সালে সাঙ্গু-মাতামুহুরী বনাঞ্চলকে সংরক্ষিত বনাঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করা হয়।
এর আয়তন প্রায় ৭৪,০০০ হেক্টর। এটি পার্বত্য অঞ্চলের সর্বপ্রথম সরকার ঘোষিত সংরক্ষিত বনাঞ্চল, যা দেশে একমাত্র কুমারী (ভার্জিন) বনাঞ্চল হিসেবেও পরিচিত। এই বনাঞ্চলের মধ্যে রয়েছে শঙ্খ বা সাঙ্গু ও মাতামুহুরী নদীর উৎপত্তি স্থল। সাঙ্গু সংরক্ষিত বনাঞ্চলের মধ্যে রয়েছে সাঙ্গু বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য। ২০১০ সালে সাঙ্গুও মাতামুহুরী বনাঞ্চলের ২৩৩১.৯৮ হেক্টর এলাকা নিয়ে এই অভয়ারণ্য সৃষ্টি করা হয়, যা সরকার কর্তৃক ঘোষিত দেশের মোট ২৩টি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্যের মধ্যে ৯ম বৃহত্তম বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য।

আমাদের সংবাদটি শেয়ার করুন..

এ পাতার আরও খবর

Sabuj Bangla Tv © All rights reserved- 2011| Developed By

Theme Customized BY WooHostBD